এ এক জীবনমুখী লেখক!সারাদিনে রাস্তায় চোখে বাস্তব জীবন যন্ত্রনার দৃশ্যগুলি লিখে ফেলেন পাতায়

এ এক জীবনমুখী লেখক।চোখ কান খোলা রেখে হাটলেই অসহায় খেটে খাওয়া মানুষ গুলোর জীবন জিবিকার ছবি নিত্য দিন কার্য্য ক্ষেত্রে আসার পথে তার চোখে পড়ে। বাড়ি ফিরে রাত গভির হলেই টেবিলে উপর মন দিয়ে সে সব বাস্তব জীবন যন্ত্রনার কাহিনী এক এক করে মনের গভীর থেকে বেড় করে সাদা কাগজের পৃষ্টায় লিখে যাওয়া। এভাবেই লিখতে লিখতেই একদিন বালুরঘাট খাদিমপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সনাতন পাল নিজেকে আবিষ্কার করলেন একজন লেখক হিসেবে।

আরো পড়ুন-গুজরাট থেকে কফিন বন্দী হাবিবুলের দেহ গ্ৰামে ফিরতেই কান্নার রোল গ্ৰামে

তার প্রকাশিত দুইটি বই ইতিমধ্যেই জেলার সাহিত্যিক মহলে সমাদৃত হয়েছে। যদিও সনাতন বাবু সাহিত্যের পাশাপাশি বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকা গুলিতে লেখালেখি করে থাকেন তার নিজস্ব সাহিত্য চর্চার পাশাপাশি। দুটোতেই তিনি নিজস্ব লেখনির মুন্সিয়ানার পাঠক মহলে ছাপ ফেলেছেন।
ইতিমধ্যেই তিনি তার দুটি বই প্রকাশিত করতে পেরেছেন।যা পাঠক মহলে সমাদৃতও হয়েছে। সে সব লেখা পড়ে পাঠকরা যখন ফোন করে তাদের কথা জানিয়ে ধন্যবাদ জানান তখন নিজের লেখনির জন্য কিছুটা হলেও তৃপ্তি লাভ করি।

আরো পড়ুন-ক্যান্সার নিয়ন্ত্রণে আই কিউ সিটি হাসপাতালে এন্ড-টু-এন্ড ক্যান্সার কেয়ার প্ল্যাটফর্ম উদ্বোধন

কিন্তু তাই বলে সেই তৃপ্তির বশে নিজের লেখনি বন্ধ করে বসে না থেকে বরং নতুন উদ্যোমে পাঠকদের নতুন কিছু উপহার দেবার জন্য চেয়ার টেবিল নিয়ে লেখার জন্য বসে যাই নিয়ম করে। ফলস্বরুপ সামনেইবারো একটি সাহিত্য মুলক বই আমার প্রকাশিত হতে চলেছে বলে জানান সনাতন পাল।
সনাতন বাবু আরো জানান তার শরির মন যত দিন সংগ দেবে ততদিন তিনি তার এই লেখনির মধ্যমে একদিকে যেমন সাহিত্য চর্চায় মগ্ন থাকবেন।অন্যদিকে তার লেখনির মধ্যমে পাঠক কুলকে নানান ধরনের লেখা উপহার দিয়ে তাদের সন্তুষ্টি বজায় রাখার প্রয়াস চালিয়ে যাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *