পড়াশোনার সাথে বিচ্ছিন্ন ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনার মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগী এই সদয় অধ্যাপক

মহামারীর বিপদকালে দু’বছর ধরে ছাত্র-ছাত্রীরা প্রায় পড়াশোনার অনেক দূরে ছিল। অনলাইনে পড়া হলেও স্কুলের পড়া না হওয়ার কারণে অনেকেই পড়াশোনা দিয়েছিল। বিশেষ করে দারিদ্র পিরিত অঞ্চলগুলির ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে এই প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। তেমনি একটি এলাকা হলো বালুরঘাট শহর লাগোয়া মঙ্গলপুর আদিবাসী পাড়া।

আরো পড়ুন-৫০০ বছরের পুরনো জাগ্রত করুনাময়ী মায়ের মন্দিরের পরিকাঠামো সাজানোর পরিকল্পনা রাজ্য সরকারের

এই এলাকায় বহু সংখ্যক দরিদ্র মানুষের বাস।করোনার অতি মারির সময় এই এলাকার বহু ছাত্র-ছাত্রী পড়াশোনা ছেড়ে দিয়েছিল।পড়াশোনার মূল স্রোতে এই ছাত্র-ছাত্রীদের ফিরিয়ে আনতে ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হন বালুরঘাট কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক সমিত কুমার সাহা।মঙ্গলপুর আদিবাসী পাড়া এলাকার পড়াশোনার সাথে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া ছাত্র-ছাত্রীদের একত্রিত করে তিনি পড়াশোনার মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনার কাজ করেন।সমিতবাবুর কথায় করোনা সময় আমি দেখতে পেয়েছিলাম লেখাপড়ার একটি ব্যাঘাত ঘটেছিল।

আরো পড়ুন-‘উদ্বাস্তু সমস্যা সমাধানে মুখ্যমন্ত্রীর ভূমিকা কুমিরের কান্নার’: মত বুনিয়াদপুরে দাবী বাবুলাল বালার

সেই সময় আমি মনে মনে ভাবি এই লকডাউনের সময় যদি আমরা কাটিয়ে উঠতে পারি তাহলে আমি কোন একটি জায়গায় এই পিছিয়ে পড়া ছাত্রছাত্রীদের পাঠদান করব। আর সেই ভাবনা থেকেই বালুরঘাটের মঙ্গলপুর আদিবাসী পাড়ায় এই শিক্ষক গড়ে তুলেছেন সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আদর্শ শিক্ষা নিকেতন।যেখানে তিনি প্রতি সপ্তাহে একদিন করে এবং ছুটির দিনগুলিতে পিছিয়ে পড়া ছাত্র-ছাত্রীদের পাঠদান করেন। শুধু পড়ানোই নয় পড়ার শেষে থাকে এই ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য টিফিনের ব্যবস্থা। পিছিয়ে পড়া ছাত্র-ছাত্রীদের পুনরায় পড়াশোনার মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনতে এই শিক্ষকের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে সাধারণ মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *