স্বাস্থ্য কেন্দ্র গড়ার জন্য সরকারি জমি দখল করা নিয়ে প্রতিবেশীদের বিরোধ

এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ এলাকায় প্রচুর মানুষের বাস।এখানে এত লোকের বসবাস সত্বেও নেই কোন স্বাস্থ্য কেন্দ্র। কিন্তু এখানে স্বাস্থ্য কেন্দ্র থাকাটা ভীষন ভাবে জরুরি ছিল। বাসিন্দাদের চিকিৎসা পরিষেবা নিতে ছুটতে হয় কুমারগঞ্জ হাসপাতালে, যা সময় ও ব্যয় সাপেক্ষ। অথচ এখানে একটি সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্র থাকলে তা থেকেই বাসিন্দারা এই পরিষেবা অনায়াসে পেতে পারত, কিন্তু তা না থাকায় ছুটতে হয় কয়েক মাইল দূরে।সেদিকে লক্ষ রেখেই এলাকার বাসিন্দা মিলিত ভাবে সরকারি ভাবে আবেদন জানান স্বাস্থ্য কেন্দ্র গড়ার। সেই অনুসারে এলাকায় থাকা সরকারি জমিতে স্বাস্থ্য কেন্দ্র গড়ে তোলা হবে বলে জায়গাটি নিদির্ঢট করা হয়।

আরো পড়ুন-ভূমিকম্পে কাঁপল রাজধানী!উৎসস্থল নেপালে, মৃত ৬

এলাকাবাসিদের অভিযোগ কিন্তু ওই সরকারি জায়গার পাশে থাকা অন্য একটি পরিবার ওই সরকারি জায়গা নিজের সীমানার মধ্যে দখল করে নেয়। এলাকাবাসিরা এই নিয়ে প্রতিবাদ জানালে ওই প্রতিবেশি থানা পুলিশ করলে পুলিশ এসে সব শুনে গ্রামবাসিদের পক্ষে রায় দিয়ে চলে যায়। কিন্তু এরপরেও ওই সরকারি জায়গা ওই প্রতিবেশি দখল মুক্ত করতে রাজি নয়। যার দরুন এলাকায় নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে বলে তাদের অভিযোগ।

আরো পড়ুন-‘জেনারেশন নেক্সট’, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক জীবন নিয়ে শর্টফিল্ম টিএমসিপি-র

যদিও যে প্রতিবেশি ওই সরকারি জমি নিজের বলে দাবি করছেন ওই বয়ষ্কা মহিলা জানান ঘটনা সত্যি নয়। তার স্বামী তিনবছর আগে মারা গেছে তারপর থেকেই এলাকার সব দুষ্কৃতি ওই জমি ও বাড়ি দখল করে নিতে চেষ্টা ও হামলা চালাচ্ছে। আমি তাই প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছি। যদিও সরকারি স্তরে বা পুলিশের তরফে এই নিয়ে এখনও কেউ মুখ খুলতে চায় নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *